খবরজেলার খবররাজনীতিরাজ্য

🔴ব্রেকিং নিউজ🔴 আগামী কাল বাংলায় ১২ ঘণ্টার বনধ ডাকলো বিজেপি

পুরো ভোটে চরম অশান্তি! আগামী কাল বাংলায় ১২ ঘণ্টার বনধ ডাকলো বিজেপি

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২৭/০২/২০২২ : রবিবারের পুরভোটে বিরোধীদের ভোটলুঠের আশঙ্কা ছিল। এদিনের ভোটে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে দায় বর্তাবে কমিশনের উপর। কলকাতা হাইকোর্টের এমন পর্যবেক্ষণ ছিল। কিন্তু কড়া পুলিস দিয়েও ১০৮টি পুরসভার ভোটে হিংসা, রক্তপাত, অশান্তি এড়ানো গেল না। দিনের শেষ ভোট পর্যালোচনা করে এমন মন্তব্য করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। রবিবার ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার দুই ঘণ্টার মধ্যেই বিক্ষিপ্ত অশান্তির অভিযোগ ওঠে জেলায়।

যদিও শেষ বেলায় কমিশন নাকি স্বীকার করেছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে। এত ব্যবস্থা করেও সবকিছু বিফলে। সকাল থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি সবকিছুর বাইরে চলে গেল। এই পরিস্থিতি দেখে হতবাক কমিশন। এমনটাই খবর মিলেছে কমিশন সূত্রে। যদিও এই সূত্রের সত্যতা যাচাই করেনি সংবাদ কিউরিওসিটি । আর এখানেই সরব হয়েছে বিরোধীরা।

ভোট সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সোমবার ১২ ঘণ্টার বাংলা বনধ ডাকল বিজেপির। রবিবার দুপুরের পর বারাসত জেলাশাসকের দফতর ঘেরাও করে বাম কর্মী-সমর্থকরা।

রবিবারের পুরভোটে বিরোধীদের ভোটলুঠের আশঙ্কা ছিল। এদিনের ভোটে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে দায় বর্তাবে কমিশনের উপর। কলকাতা হাইকোর্টের এমন পর্যবেক্ষণ ছিল। কিন্তু কড়া পুলিস দিয়েও ১০৮টি পুরসভার ভোটে হিংসা, রক্তপাত, অশান্তি এড়ানো গেল না। দিনের শেষ ভোট পর্যালোচনা করে এমন মন্তব্য করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। রবিবার ভোট গ্রহণ শুরু হওয়ার দুই ঘণ্টার মধ্যেই বিক্ষিপ্ত অশান্তির অভিযোগ ওঠে জেলায়।

যদিও শেষ বেলায় কমিশন নাকি স্বীকার করেছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে। এত ব্যবস্থা করেও সবকিছু বিফলে। সকাল থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি সবকিছুর বাইরে চলে গেল। এই পরিস্থিতি দেখে হতবাক কমিশন। এমনটাই খবর মিলেছে কমিশন সূত্রে। যদিও এই সূত্রের সত্যতা যাচাই করেনি সিএন। আর এখানেই সরব হয়েছে বিরোধীরা।

ভোট সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সোমবার ১২ ঘণ্টার বাংলা বনধ ডাকল বিজেপির। রবিবার দুপুরের পর বারাসত জেলাশাসকের দফতর ঘেরাও করে বাম কর্মী-সমর্থকরা। লালবাজার অভিযানে গিয়ে ধুন্ধুমার বাধে পুলিস আর বিজেপির। তাই রাজ্য রাজনীতির এই উত্তেজনায় কিছুটা উদ্বিগ্ন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। আগামিকাল সকাল ১১টার মধ্যে তিনি রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসকে তলব করেছেন। এই পরিস্থিতিতে সোমবারের বিজেপির ডাকা বনধের বিরোধিতা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন জানান তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, ‘সোমবার দোকানপাট খোলা থাকবে। সচল থাকবে রাজ্য।’

 

রবিবার দিনভর ইভিএম ভাঙচুর, ভুয়ো ভোটার পাকড়াও, বাইক বাহিনীর দাপট, বোমাবাজি থেকে ছাপ্পা। এমনকি বিরোধী দলের সাংসদকে লক্ষ্য করে ইট– এই জাতীয় অশান্তির অভিযোগই ঘুরেফিরে এসেছে। জানা গিয়েছে, রবিবার সকাল থেকে বিকেল খবরের শিরোনামে ছিল কাঁথি, ভাটপাড়া, কামারহাটি, ধুলিয়ান, সোনারপুর-রাজপুর, উত্তর দমদমের মতো পুরসভাগুলি। বিক্ষিপ্ত ঘটনার পাশাপাশি বেশি অশান্তির খবর এই পুরসভাগুলি থেকে করেছেন বিরোধীরা। কমিশন সূত্রে খবর, এদিন অশান্তির ঘটনায় ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গেরুয়া শিবিরের দাবি, শাসক তৃণমূল সোমবার গায়ের জোরে ভোট করিয়েছে। বহু জায়গায় ভোট লুঠ হয়েছে। বিজেপি-র অভিযোগ, পুলিশ কোথাও দর্শকের আচরণ করেছে কোথাও তৃণমূলকে সহযোগিতা করেছে। বিজেপি-র দাবি, ১০৮ পুরসভাতেই নির্বাচনের নামে প্রহসন হয়েছে। উল্লেখ্য, শাসক দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে – বাংলায় বন্ধের সংস্কৃতি নেই। বাংলায় কোনও বন্‌ধ হবে না। সাফ জানালেন ফিরহাদ হাকিম। বিজেপির বন্‌ধের পালটা রাস্তায় নেমে বিকেল চারটেয় মিছিলের আহ্বান জানালেন তিনি। বাস-ট্যাক্সি চালকদের নির্দ্বিধায় রাস্তায় নামতে বললেন ফিরহাদ হাকিম।

এদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে অভিযোগ পুরভোট শুরুর ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই বিজেপি গন্ডগোল শুরু করে। বসিরহাট থেকে বারাসত, উত্তর বারাকপুর থেকে রাজপুর সোনারপুর পুরসভা – দিকে দিকে উঠল ইভিএম ভাঙচুরের অভিযোগ। প্রতিটি ঘটনাতেই কাঠগড়ায় বিজেপি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page

Adblock Detected

Please Turn Off Your Ad Blocker.